বুড়িচং সীমান্তে সাংবাদিক হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার ৪

বুড়িচং উপজেলার ভারতের সীমান্তবর্তী এলাকায় সাংবাদিক মহিউদ্দিন ওরফে নাঈম সরকার (২৪) হত্যার ঘটনায় চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতভর জেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সোহান সরকার এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- মামলার এজাহারভুক্ত আসামি ফরহাদ মৃধা (৩৮) ও মো. পলাশ মিয়া (৩৪)। এছাড়াও এ ঘটনায় এজাহারবহির্ভূত আরও দু’জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তবে এখনো তাদের পরিচয় জানায়নি পুলিশ।

কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সোহান সরকার জানান, বৃহস্পতিবার রাতভর অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে পুলিশ সুপার কার্যালয় থেকে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।

বুড়িচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন বলেন, গ্রেপ্তার ৪ জনকে আদালতে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।

এর আগে বুধবার রাত রাত সাড়ে ১০ টার দিকে বুড়িচং উপজেলার সীমান্তবর্তী রাজাপুর ইউনিয়নে হায়দরাবাদ এলাকায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে স্থানীয় সাংবাদিক মহিউদ্দিন নাঈম নিহত হন।

মহিউদ্দিন জেলার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার অলুয়া গ্রামের সরকার বাড়ির বাসিন্দা ও পুলিশের অবসরপ্রাপ্ত এএসআই মোশাররফ হোসেনের ছেলে। তিনি কুমিল্লা থেকে প্রকাশিত ‘কুমিল্লার ডাক’ পত্রিকায় স্টাফ রিপোর্টার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। এর আগে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল আনন্দ টিভির ব্রাহ্মণপাড়া-বুড়িচং প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করতেন তিনি।

এ ঘটনায় নিহত মহিউদ্দিনের মা নাজমা বেগম বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার বুড়িচং থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় মাদক ব্যবসায়ী ও চোরাকারকারীসহ তিনজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও পাঁচ-ছয়জনকে আসামি করা হয়েছে।

এদের মধ্যে মহিউদ্দিন হত্যা মামলার প্রধান আসামি রাজু জেলার আদর্শ সদর উপজেলার পাঁচথুবী ইউনিয়নের বিষ্ণুপুর গ্রামের মৃত সাদেক মিয়ার ছেলে। তার বিরুদ্ধে অস্ত্র মাদকসহ ৮/১০টি মামলা রয়েছে। তবে এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

আরো পড়ুন: